সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ৩০ আগস্ট, ২০১৯, ০৮:৩৬:৩৮

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিলেন: শেখ হাসিনা

 বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিলেন: শেখ হাসিনা

ঢাকা: বিএনপি এদেশের রাজনীতিকে কলুষিত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। তিনি স্বাধীনতাবিরোধীদের পুনর্বাসন করেছিলেন। তাদের মন্ত্রিসভায় স্থান দেওয়ার পাশাপাশি যুদ্ধাপরাধের বিচার বন্ধ করেন। রাজনীতিতে অযোগ্যদের পদায়ন করেন। তিনি আদর্শের রাজনীতি ধ্বংস করে খুনের রাজত্ব কায়েম করেন। শুক্রবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ এমপির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাত, উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান এমপি, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, দক্ষিণের সহ-সভাপতি আবু হানেফ মান্নাফী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী, উত্তরের সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসএ মান্নান কচি প্রমূখ। সভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের প্রচার সম্পাদক আকতারুজ্জামান ও উত্তরের উপ প্রচার সম্পাদক আজিজুল হক রানা। এ সময় মঞ্চে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা উপস্থিত ছিলেন। জিয়াউর রহমানের অবৈধ ক্ষমতা দখল প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান অবৈধ ক্ষমতা দখলকে বৈধতা দেওয়ার নামে “হ্যাঁ-না নাটক” করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছিলেন। হাইকোর্ট এটিকে অবৈধ ঘোষণা করেছেন। এজন্য বিএনপির সৃষ্টিটাও অবৈধ হয়ে যায়। শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে তো বটেই সারাবিশ্বে ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ঘৃণিত, নিন্দিত। রাজনৈতিক ইতিহাসে নিষ্ঠুর, নির্মম ও নৃশংস হত্যাকাণ্ডের উদাহরণ। ১৫ আগস্টে শুধু একটা পরিবারকে হত্যা নয়। এর মধ্য দিয়ে আমাদের দেশের ইতিহাসকে একেবারে মুছে দেওয়ার অপচেষ্টা করা হয়। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট যেন কারবালার ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলো ৩২ নম্বরে। খুনিরা এমন একটি মানুষকে হত্যা করলো যে মানুষ তাদের দেশ দিলো, স্বাধীনতা দিলো। তিনি বলেন, পঁচাত্তরের পর যারাই ক্ষমতায় এসেছে তারাই ১৫ আগস্টের খুনিদের মদত দিয়েছে। যেভাবে জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে খুনিদের দূতাবাসে চাকরি দিয়েছিলেন সেভাবে খালেদা জিয়াও পুনর্বাসন করেছেন। এরশাদও খুনিদের মদত দিয়েছেন পুরস্কৃত করেছেন। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে খুনি দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান শুধু খুনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না, এই হত্যার যাতে বিচার না হয় সেই ব্যবস্থাও করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডে যারা জড়িত ছিল তাদের বিভিন্ন দেশের দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়েছিল। ডালিমসহ অন্যদের যখন বিদেশে পাঠানো হলো, অনেক দেশ তাদের গ্রহণ করেনি। যেসব দেশ মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের সপক্ষে ছিল তারা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের কূটনীতিক হিসেবে মেনে নিতে পারেনি। কিন্তু বঙ্গবন্ধু হত্যা নিয়ে বিএনপি নেতারা নতুন সাফাই গাইতে শুরু করেছেন বলে আওয়ামী লীগ সভাপতি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা বলছেন, ’৭৫ সালে তো বিএনপি গঠনই হয়নি তাহলে বঙ্গবন্ধু হত্যায় বিএনপি কীভাবে জড়িত হলো? জিয়াউর রহমানের ভূমিকাই বলে দেয় বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে তারা কীভাবে জড়িত। আওয়ামী লীগের যারা বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিল, তারাও পরবর্তী সময়ে জিয়ার সঙ্গে গেছে। অনেকে এখনও বেঁচে আছে, বড় বড় কথাও বলে! সরকার প্রধান অভিযোগ করেন, ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের পর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে সব আন্দোলন-সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর অবদান মুছে দেওয়া হয়েছিল। একমাত্র বিটিভি ছিল। সেখানে বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ করা যেত না। একেবারে ইতিহাস থেকেই মুছে ফেলার অপচেষ্টা করা হয়। কিন্তু বঙ্গবন্ধু অবিনশ্বর। তিনি আজ জীবন্ত ইতিহাস। তিনি বেঁচে আছেন, বাঙ্গালির হৃদয়ে, বিশ্বের শান্তিকামী মানুষের মনে।

এই বিভাগের আরও খবর

  একটিমাত্র কারণে আবরার-কে হত্যা করা হয়েছে, তা এখনই বলা যাবে না: মনিরুল ইসলাম

  কিশোর গ্যাং কালচারের বিরুদ্ধে কঠোর হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

  আজকের তরুণ-তরুণীরাই আগামী দিনে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে: শেখ হাসিনা

  তোমাদের দাবি মেনে নিচ্ছি : বুয়েট ভিসি

  দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান অভিযান ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে- রাষ্ট্রপতি

  আগামী ১২ নভেম্বর খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

  শিশু সামিয়া হত্যার প্রতিবেদন আগামী ২৯ অক্টোবর

  নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা আজ থেকে

  স্প্যানিশ লা লিগায় মেসির গোলে বিধ্বস্ত করল সেভিয়া

  ভারত সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

  সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ

https://web.facebook.com/Somoy-news

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন,মাদক সম্রাটতো সংসদেই আছে। তাদেরকে বিচারের মাধ্যমে আগে ফাঁসিতে ঝুলান। আপনি কি একমত?