শুক্রবার, ২২ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭, ০৩:০১:৪৫

‘স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার’ সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য

‘স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার’ সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য

বিনোদন ডেস্ক : ‘স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার’ সিনেমাটি মুক্তি পায় ২০১২ সালে। কারন জোহার পরিচালিত এ সিনেমার মধ্য দিয়েই রুপালি জগতে অভিষেক ঘটে আলিয়া ভাট, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও বরুণ ধাওয়ানের।

সম্প্রতি মুক্তির পাঁচ বছর পূর্ণ করেছে সিনেমাটি। কিন্তু এখনও ‘স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার’ সম্পর্কিত এমন অনেক তথ্য আছে যা আমাদের কাছে অজানা।  

 

তবে আর দেরি না করে চলুন জেনে নেই সেই তথ্যগুলো সম্পর্কে।

 

১. স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার আলিয়ার প্রথম সিনেমা নয়। ১৯৯৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘সংঘর্ষ’ সিনেমায় শিশুশিল্পী হিসেবে প্রথম অভিনয় করেন এ অভিনেত্রী। প্রীতি জিনতার ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।  

 

২. সিনেমাটিতে গুলশান গ্রোভারের ছেলে সঞ্জয় গ্রোভারকে নিতে চেয়েছিলেন করন। কিন্তু সিনেমার জন্য সে সময় প্রস্তুত না থাকায় রাজি হয়নি সে। শোনা যায়, জ্যাকি শ্রফের মেয়ে কৃষ্ণা শ্রফকেও সিনেমাটির জন্য প্রস্তাব দেয়া হয়।

কিন্তু সেও করনকে ফিরিয়ে দেন।

 

৩. অডিশনের সময় সোনম কাপুর ও ইমরান খানের ‘আই হেট লাভ স্টোরি’ সিনেমার ‘বাহারা’ গানে নেচেছিলেন আলিয়া।

 

৪. স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার সিনেমায় অভিনয়ের আগে ২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘মাই নেম ইজ খান’ সিনেমায় করনের সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও বরুণ ধাওয়ান।

 

৫. সিনেমাটিতে ডিম্পি নামের একজনের চরিত্রে অভিনয় করেন মনোজৎ সিং। তার আগে তিনটি সিনেমায় অভিনয় করেন এ অভিনেতা। বরুণের সঙ্গে সিনেমার সেটে বেশ ভালো বন্ধুত্ব হয়েছিল তার। মনোজৎ সিং জানান, বরুণ তার শুটিং শেষ করে তাকে জিজ্ঞেস করতেন, তার শট ঠিক ছিল কিনা? এর কারণ জিজ্ঞেস করলে বরুণ বলতেন, ‘তিনটি সিনেমায় অভিনয় করেছ, তুমি আমাকে নির্দেশনা দিতে পারবে। ’

 

৬. আলিয়া ভাটকে চূড়ান্ত করার আগে ৪৩২জন মেয়ের অডিশন নিয়েছেন করন জোহর।

 

৭. শুটিংয়ের সময় অত্যাধিক পরিশ্রম ও ঠান্ডার কারণে আলিয়া কমপক্ষে ১৪বার জ্ঞান হারিয়েছিলেন।

 

৮. স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার সিনেমার জন্য আলিয়াকে ওজন কমাতে বলেছিলেন করন। এজন্য তিনি নির্দেশনাও দিয়েছিলেন। এ অভিনেত্রীকে বাড়তি ওজন কমাতে তিনমাস সময় দিয়েছিলেন এ নির্মাতা।

 

৯. এ সিনেমার গান ‘ইশকওয়ালা লাভ’ টপচার্টে শীর্ষে ছিল। এর সঙ্গে মিল রেখে ২০১৪ সালে একই নামে একটি মারাঠি সিনেমা নির্মিত হয়।  

 



আজকের প্রশ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন,মাদক সম্রাটতো সংসদেই আছে। তাদেরকে বিচারের মাধ্যমে আগে ফাঁসিতে ঝুলান। আপনি কি একমত?