শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ,২০২১

Bangla Version

বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করার জন্য যোগাযোগ করুন (newsroom.somoynews24@gmail.com)

  
SHARE

সোমবার, ০২ নভেম্বর, ২০২০, ০৪:৫০:২৯

লঘুচাপের পরই প্রকৃতিতে আসবে শীতের আবহ

লঘুচাপের পরই প্রকৃতিতে আসবে শীতের আবহ

ঢাকা: বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের পরই প্রকৃতিতে ধীরে ধীরে শীত নামতে শুরু করবে। এ বছর অক্টোবরে মৌসুমি বায়ুর প্রভাব চলমান থাকায় বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের কারণে প্রকৃতিতে শীত আসতেও কিছুটা দেরি হচ্ছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়াবিদরা। লঘুচাপের প্রভাবে চট্টগ্রাম, বরিশাল, সিলেটসহ কয়েকটি অঞ্চলে আগামী দুই দিনও হালকা বৃষ্টি থাকবে জানান তারা। বঙ্গোপসাগরে এবার অক্টোবরে পর পর দুটো লঘুচাপ সৃষ্টি হওয়ায় সাগর অনেকটাই বিক্ষুব্ধ আর এর প্রভাবে অক্টোবরজুড়ে অন্য সময়ের চেয়ে বৃষ্টিও হয়েছে বেশি। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, লঘুচাপের এই প্রভাব কমলে শুরু হবে শীতল আমেজ। আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক বলেন, ‘অন্যান্য বছরে যেভাবে নভেম্বরেই রাতের তাপমাত্রা কম থাকত, বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকার কারণেই তাপমাত্রাটা কম নাই। মৌসুমি বায়ু দূরীভূত হতে সময় বেশি নিয়েছে এবং বঙ্গোপসাগরে একটার পর একটা লঘুচাপ অবস্থান করার কারণে এবার অক্টোবরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণটা একটু বেশি। সব সময় নভেম্বর মাস থেকে তাপমাত্রাটা কমা শুরু করে। এবার আজ থেকেই হয়তো দেশের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলে শীতের আমেজ পড়তে শুরু করবে।’ চলমান লঘুচাপের প্রভাবে আরো এক-দুদিন চট্টগ্রাম, বরিশাল ও খুলনায় হালকা থেকে বেশি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান এই আবহাওয়াবিদ। আবহাওয়া অফিস বলছে, ছয় মাস ধরেই বঙ্গোপসাগরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে দুই থেকে চার ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। আজ সোমবার সকাল ৯টায় পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে। অন্যবিভাগে রাতের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকতে পারে। এবং দিনের তাপমাত্রা সারা দেশে প্রায় অপরিবর্তিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। পরবর্তী তিন দিনের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সপ্তাহের শেষে বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের পরিস্থিতি ভালো হতে পারে। ঢাকায় আজ সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫টা ১৮ মিনিটে এবং আগামীকাল সূর্যোদয় ভোর ৬টা ৬ মিনিটে।

https://web.facebook.com/Somoy-news

 

 

আজকের প্রশ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন,মাদক সম্রাটতো সংসদেই আছে। তাদেরকে বিচারের মাধ্যমে আগে ফাঁসিতে ঝুলান। আপনি কি একমত?