সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৯, ০১:৪৯:৪০

মিডিয়াকে বিদায় জানালেন তমিজ খান

মিডিয়াকে বিদায় জানালেন তমিজ খান

বিনোদন ডেস্ক : মিডিয়া তে কাজ করা অনেকের কাছেই একটা সৌখিন ব্যাপার। সেই সৌখিনতাই একদিন অনেকের কাছে পেশা হয়ে যায়। নেশা থেকে পেশায় পরিনিত হওয়া চারটী খানি কথা না। ভালোলাগার কাজ টাই যখন পেশা হিসেবে পরিনিত হয় তখন কাজের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা টা আরো বেশি বেড়ে যায়। তেমনি এক অগাধ ভালোবাসা নিয়ে মিডিয়াতে যাত্রা করেছিলেন তমিজ খান। অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালনা ও করতেন তিনি। তার নিজের লেখা নাটক তিনি নিজেই পরিচালনা করেছেন। বহুগুনে গুণান্বিত একজন মানুষ তমিজ খান। নিজে গান লিখতেন সুর ও করতেন। তার লেখা গান দুই বাংলায় জনপ্রিয়। কিন্তু হঠাৎ করেই তমিজ খান ঘোষনা দিলেন মিডিয়া থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার। তার আসল কারণ এখন ও জানা যায় নি। এ ব্যাপারে তমিজ খানের সাথে কথা বললে ও তিনি বিষয়টি ঘোলাটেই রেখে গেছেন। তমিজ খান বলেন "আমি তমিজ খান, আমি বলছি আর কখন ও মিডিয়াতে কাজ করব না। আজ এখন থেকে সব বাদ দিলাম। কারণ আমি দেখেছি যারা মিডিয়ার লোক তাদের ভাব বেশি। তাই আর কাজ করব না। যদি মিডিয়ায় কাজ করার সময় কারো মনে দুঃখ দিয়ে থাকি তাহলে ক্ষমা করে দিবেন। 
জীবনে আশা ছিল নিজ কন্ঠে দুটি গান গাইব, আর কপালে হলো না, সব তার মর্জি। আমার আর কিবা করার। মনের কষ্ট মনেই রইল পূরন হল না। হায়রে কপাল , গরিবের কপাল একেবারেই অমূল্যহীন। কেউ আমার মত গরীব কপাল নিয়ে এসো না এই ভবে। আজ জীবনের কিছু কথা খুব মনে পরে , গরীব কে মনে হয় বিধাতা বানিয়েছে ধনীদের চাকর হয়ে থাকার জন্য। সত্যি আজ বড় লজ্জা হয় আমার।" 
বড় আক্ষেপ নিয়ে একথা গুলো বলেন তমিজ খান। মিডিয়ার প্রতি হঠাৎ এই ক্ষোভ তার ভক্ত হৃদয়ে এক ক্ষতের জন্ম দিয়েছে। সবাই আশাবাদী তমিজ খান যেন আবার তার নিজের ভালোবাসার জায়গা সেই মিডিয়াতে আবার ফিরে আসেন। আবার ও নাটক লিখবেন, গান লিখবেন ও অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শকদের আনন্দ দিবেন। তার এই মিডিয়া ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত কেউ ই মেনে নিতে পারছে না। 

https://web.facebook.com/Somoy-news

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন,মাদক সম্রাটতো সংসদেই আছে। তাদেরকে বিচারের মাধ্যমে আগে ফাঁসিতে ঝুলান। আপনি কি একমত?