রবিবার, ২০ আগস্ট ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ০৮ জুলাই, ২০১৭, ০১:৪৫:২১

ফোরজি নীতিমালা শর্ত দিয়ে খসড়া প্রস্তাব

 ফোরজি নীতিমালা শর্ত দিয়ে খসড়া প্রস্তাব

স্টাফ রিপোর্টার, সময় নিউজ ২৪ ডট কম : দেশে চতুর্থ প্রজন্মের (ফোরজি) টেলিকম সেবার সর্বনিম্ন গতি ১০০ এমবিপিএস এবং আন্তর্জাতিক মান গতি এক জিবিপিএস নির্ধারণ এবং লাইসেন্স গ্রহণের জন্য অপারেটরকে পুঁজি বাজারে নিবন্ধিত হতে হবে। সরকারের ফোরজি নীতিমালার খসড়ায় এ প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। অংশীজনের মত গ্রহণের জন্য দাপ্তরিক ওয়েব সাইটে এই খসড়া নীতিমালাটি প্রকাশ করেছে ডাক ও টেলিযোগযোগ বিভাগ। আগামী ১৩ জুলাই পর্যন্ত এ বিষয়ে অভিমত গ্রহণ করা হবে। লাইসেন্সের খসড়ায়, লাইসেন্স নেয়ার প্রথম ৯ মাসের মধ্যে সকল বড় শহরে এবং ১৮ মাসের মধ্যে জেলা শহর পর্যায়ে ফোরজির সেবা চালুর কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও লাইসেন্স প্রাপ্তির ৫ বছরের মধ্যে সকল উপজেলা, মহাসড়ক এবং রেললাইনসহ লোকজনের যাতায়াতের স্থানে ফোরজির সেবা নিশ্চিত করার কথা উল্লেখ রয়েছে। যেসব এলাকায় অপারেটরগুলো সেবা চালু করবে সেখানে আর কোনও অবস্থায় বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়া সেবা বন্ধ না করার বিষয়েও স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি কর্তৃক প্রণীত এই খসড়ার ৪জি মোবাইল সেল্যুলার সার্ভিস সংজ্ঞায়- মহাসড়কে চলার সময় এবং ট্রেনে ভ্রমনের সময় ফোরজি সেবায় ইন্টারনেটের সর্বনিম্ন গতি ১০০ এমবিপিএস-এর নীচে নামতে পারবে না বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আর পথচারী ও  স্থায়ী ব্যবহারকারীর ক্ষেত্রে এই গতি সর্বনিম্ন ১জিবিপিএস প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে গতি নির্ধারণের এই প্রক্রিয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করছেন মোবাইল ফোন অপারেটর সংশ্লিষ্টরা। এর মধ্যে বড় ৩টি অপারেটর ইতিমধ্যে ফোরজি নেটওয়ার্ক এর পরীক্ষা চালিয়ে  ৫০ থেকে ৯৫ এমবিপিএস গতির ডেটা ডাউনলোড করতে পেরেছে। এই গতি আবার ব্যবহারকারী বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভাগ হয়ে যায়। ফলে সর্বনিম্ন গতি ১০০ এমবিপিএস করা বাস্তব সম্মত নয়। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, ৫ এমবিপিএস-এর ওপরের গতির মোবাইল ইন্টারনেটকেই ফোরজি বা এলটিই হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তাহলে কী দেশে ১০০ এমবিপিএস থেকে এক জিবিপিএস গতির ফোরজি সেবা চালু করা সম্ভব নয়- প্রশ্নের জবাবে এখনই কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি মোবাইল অপারেটরদের সংগঠন অ্যামটবের মহাসচিব ও প্রধান নির্বাহী এ টি এম নুরুল কবীর। তিনি বলেন, আমরা বিষয়গুলো খতিয়ে দেখছি। আগামী ১২ জুলাইয়ের মধ্যে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে জানাবো। এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে নেটওয়ার্কিংয়ে অভিজ্ঞ একজন প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ বলেন, সর্বনিম্ন গতি ১০০ এমবিপিএস করতে হলে স্বাভাবিকের চেয়ে অন্তত ১০ গুণ খরচ বাড়বে। আর এটা যদি ব্যবসায় ক্ষেত্রে সুবিধাজনক না হয় তাহলে অপারেটররা সে পথে হাঁটবেন না এটাই স্বাভাবিক। অপরদিকে পুঁজি বাজারে নিবন্ধন বিষয়ে রবির ভাইস প্রেসিডেন্ট ইকরাম কবীর বলেন, থ্রিজির সময়ও এমনটা বলা হয়েছিলো। কিন্তু বাস্তবসম্মত না হওয়ায় তা পরে বাতিল করা হয়েছিলো। পুঁজি বাজারে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ করার সুবিধা না থাকায় অপারেটরগুলো এ পথে পা বাড়াবে না। সঙ্গত কারণে এবারও হয়তো চূড়ান্ত নীতিমালায় ব্যবসা ও সেবা ক্ষেত্রে বিদ্যমান বাধাগুলো বাতিল করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

কিছু সহিংসতা ও অনিয়ম হলেও সামগ্রিকভাবে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে—সিইসির এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?