শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ,২০২০

Bangla Version

বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করার জন্য যোগাযোগ করুন (newsroom.somoynews24@gmail.com)

  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ০৪:৩১:২১

হাতিয়ায় ঘর পেলো ১০ গৃহহীন পরিবার

হাতিয়ায় ঘর পেলো ১০ গৃহহীন পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার: ঘরের মধ্যে নেই বেড়া। চালের মধ্যে পলিথিনের জোড়াতালি দিয়ে বৃষ্টির পানি আটকানোর চেষ্টা। পালা ও আড়া না থাকায় অনেকটা নুয়ে পড়ার অবস্থা। আর্থিক দৈন্যতার কারণে মেরামত করা যাচ্ছে না। দীর্ঘদিন তিন নাতি ও নাতিনদের নিয়ে এই ঘরে বসবাস করছেন ১৮ বছর পূর্বে স্বামী মারা যাওয়া সখিনা খাতুন (৪৮)। দুটি ছেলে সন্তান ও একটি মেয়ে  জন্ম দিলেও দুই ছেলে মারা যায় অনেক আগে। এখন একমাত্র মেয়ের তিন সন্তান তার দেখভাল করে।  এসব চিত্র দেখে বাংলাদেশ কুটির হাতিয়া নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তাকে পুরাতন ঘরের পাশে একটি পরিপূর্ণ টিনের ঘর তৈরি করে দিয়েছে। এতে করে জীবনের শেষ অবস্থায় এসে অনেকটা সুখের হাসি হাসতে দেখা গেছে তাকে। এটি নোয়াখালী দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার তমরদ্দি ইউনিয়নের ক্ষিরোদিয়া গ্রামের বিধবা সখিনার  পরিবারের চিত্র। মুজিববর্ষের অঙ্গিকার, বাংলাদেশ কুটির হোক, গৃহহীন অসহায় জনতার’  এই স্লোগানে সংগঠনটি ইতোমধ্যে হাতিয়ার তমরদ্দি ইউনিয়নে  আটটি ও সোনাদিয়া ইউনিয়নে একটি ও চরকিং ইউনিয়নে একটিসহ ১০টি গৃহহীন পরিবারকে সম্পূর্ণ নতুন ঘর তৈরি করে দেয়। সংগঠনের সভাপতি তাছলিম আলম সেলিম জানান, মুজিববর্ষ উপলক্ষে আমরা একশটি পরিবারকে এভাবে নতুন ঘর তৈরি করে দেওয়ার চিন্তা করছি। এদিকে আজ বৃহস্পতিবার সকালে তমরদ্দি ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডে ১০টি পরিবারের মধ্যে তিনটি পরিবারে মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন  হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইমরান হোসেন । এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কুটির হাতিয়া শাখার সভাপতি তাছলিম আলম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান মঞ্জু। এ ব্যাপারে সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান মঞ্জু বলেন, আমাদের এ কাজে সহযোগিতা করেছেন বাংলাদেশ কুটিরের দেশে ও বিদেশে অবস্থান করা সদস্যরা ।

https://web.facebook.com/Somoy-news

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন,মাদক সম্রাটতো সংসদেই আছে। তাদেরকে বিচারের মাধ্যমে আগে ফাঁসিতে ঝুলান। আপনি কি একমত?