সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ২৬ জুলাই, ২০১৯, ১১:১৫:০৯

মামলা ভিন্ন খাতে নিতে ষড়যন্ত্র চলছে: রিফাতের বাবার

মামলা ভিন্ন খাতে নিতে ষড়যন্ত্র চলছে: রিফাতের বাবার

বরগুনা প্রতিনিধি: তদন্ত ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে পিবিআই ও সিআইডির তদন্ত দাবি করেছেন মিন্নির বাবা। তাই সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে মিন্নির বাবা-মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে গ্রেফতার করার দাবি জানিয়েছেন, নিহত রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ। এর আগে ২৪ জুলাই মিন্নির বাবা সংবাদ সম্মেলন করে পুলিশের কাছ থেকে মামলাটিকে পিবিআই তদন্তের দাবি জানান। শুক্রবার দুপুর একটায় বরগুনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান। এ সময় নিহত রিফাত শরীফের চাচা আবদুল আজিজ শরীফসহ পরিবারের স্বজনরা উপস্থিত ছিল। এ সময় তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার ছেলে শাহনেওয়ার রিফাতকে (রিফাত শরীফ) কুপিয়ে হত্যা ষড়যন্ত্রের মাস্টারমাইন্ড স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ১৫ জন আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ১৫ জন আসামিই হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। মামলার সামগ্রিক কার্যক্রম সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে এগিয়ে চললেও প্রভাবশালী মহলের ইন্ধনে মামলাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। দুলাল শরীফ বলেন, আমি মামলার বাদী আমি মনে করি তদন্ত সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে হচ্ছে কিন্তু আসামিরা মামলাকে ভিন্নখাতে নিতে পিবিআই ও সিআইডি তদন্তের দাবি জানাচ্ছে। এটা কোনভাবেই মানা যায় না যে মামলার আসামি হয়ে মামলার তদন্ত পরিবর্তনের দাবি জানায়, এর পেছনে নিশ্চয়ই কোন ষড়যন্ত্র আছে। আমি পুলিশের তদন্তে সন্তুষ্ট বলেও জানান তিনি। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমার ছেলেকে হত্যার পেছনে মিন্নিই ষড়যন্ত্র করেছে। এর আগেও এসআই আসাদ, ওবায়দুল ও এএসআই সোহেল খান, নয়ন বন্ড ও মিন্নি চলতি বছরের ১১ মে আমার ছেলেকে মাদক দিয়ে ফাঁসিয়ে জেল হাজতে পাঠায়। রিফাত হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ১৫ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা সবাই ১শ’ ৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। প্রধান আসামি নয়ন বন্ড ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। মামলার এজাহারভুক্ত ১২ আসামির মধ্যে এখনও চারজন গ্রেফতার হয়নি।

প্রসঙ্গত, ২৬ জুন সকালে প্রকাশ্যে বরগুনা সরকারী কলেজ গেটের সামনে রিফাতকে কুপিয়ে আহত করা হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় বরিশাল নেয়ার পর তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন।

https://web.facebook.com/Somoy-news

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন,মাদক সম্রাটতো সংসদেই আছে। তাদেরকে বিচারের মাধ্যমে আগে ফাঁসিতে ঝুলান। আপনি কি একমত?